অগ্রবর্তী সময়ের ককপিট
ক্রিকেট খেলা সর্বশেষ

প্রোটিয়াদের ৮৩ রানে গুঁড়িয়ে ভারতের আটে আট

মাত্র ৮৩ রানে গুটিয়ে গিয়ে মেনে ২৪৩ রানের বিশাল পরাজয়। বিশ্বকাপে অপ্রতিরোধ্য ভারত আট ম্যাচ খেলে আটটিতেই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল। তাতে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করলো স্বাগতিকরা।

কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫ উইকেটে ৩২৬ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় ভারত। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করে জন্মদিনে নিজেকে উপহার দেন বিরাট কোহলি। সেই সেঞ্চুরিতে ছুঁলেন ওয়ানডে ৪৯ সেঞ্চুরি করা শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ড।

কোহলির ৩৫ বছর পূর্ণের দিনকে সামনে রেখে ইডেন সেজেছে বিশেষ রূপে। অবশ্য ম্যাচের শুরুর ঝলকটা দেন রোহিত শর্মা। শুভমান গিলকে উদ্বোধনী জুটিতে যোগ করেন ৬২ রান। কাগিসো রাবাদার শিকার হয়ে ২৪ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কায় ৪০ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে বিদায় নেন ভারতীয় অধিনায়ক। এরপরই আগমন কোহলির। যার জন্য মঞ্চ সাজিয়ে রেখেছিল ইডেন।

দ্বিতীয় উইকেটে গিলের বেশিক্ষণ সঙ্গ পাননি কোহলি। তবে তৃতীয় উইকেটে শ্রেয়াস আইয়ারকে নিয়ে ইনিংস মেরামতের কাজ করেন তিনি। দুজনে মিলে গড়েন ১৩৪ রানের জুটি। কোহলির মতো সেঞ্চুরির পথে ছুটছিলেন আইয়ারও। যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে কোহলির আগেই সেঞ্চুরি পাওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু ৮৭ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৭৭ রানের দারুণ ইনিংসের ইতি টানেন তিনি।

জুটি ভাঙার পর দ্রুতই লোকেশ রাহুল ও সূর্যকুমার যাদবকে ফেরায় প্রোটিয়া। তবে কোহলি ছিলেন অবিচল। ৪৯তম ওভারের তৃতীয় বলে আসে সেই কাঙ্ক্ষিত মুহূর্ত। ইডেনের গ্যালারিতে প্রায় সব দর্শকই তখন মোবাইলের ক্যামেরা তাক করেছেন তার দিকে। কাগিসো রাবাদার লেংথ বল কাভারে ঠেলে দিয়ে কোহলি যখন সিঙ্গেল তখন উল্লাসে ফেটে পড়ে পুরো গ্যালারি। কিন্তু কোহলির মধ্যে নেই সেই চিরচেনা উদযাপন। একপ্রকার ভাবলেশহীন থেকেই উঁচিয়ে ধরলেন ব্যাট ও হেলমেট।

জন্মদিনে ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করা সপ্তম ব্যাটার কোহলি, বিশ্বকাপে তৃতীয়। চলতি আসরে এর আগে জন্মদিনে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল মার্শ।

১১৯ বলে সেঞ্চুরি ছোঁয়া কোহলি পরে আর বল খেলার সুযোগ পান দুটি। ১০ চারে সাজানো ইনিংসটিতে অপরাজিত থাকেন ১০১ রানে। অপরপ্রান্তে ১৫ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় অপরাজিত ২৯ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেন রবীন্দ্র জাদেজা।

বড় লক্ষ্যের জবাব দিতে রবীন্দ্র জাদেজার ঘূর্ণিজালে আটকা পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। উইকেটে কেবল আসা-যাওয়ার মিছিল চলতে থাকে ব্যাটারদের। সর্বোচ্চ ১৪ রান করেন মার্কো ইয়ানসেন। এছাড়া দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেন শুধু টেম্বা বাভুমা, রাসি ফন ডার ডুসেন ও ডেভিড মিলার। বাকিরা সবাই ফেরেন এক অঙ্কের ঘরে থেকে। ভারতের হয়ে জাদেজা সর্বোচ্চ ৫ উইকেট নেন। এছাড়া মোহাম্মদ শামি ও কুলদীপ যাদবের শিকার দুটি করে উইকেট। জন্মদিনে দুর্দান্ত ইনিংস খেলায় ম্যাচসেরা হয়েছেন কোহলি।

সম্পর্কিত খবর

প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়, ধাপে ধাপে মাধ্যমিক খুলে দেওয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

News Editor

ইয়াঙ্গুনের কাছে সামরিক গাড়িবহরে বোমা হামলা

gmtnews

সম্পর্কের ৫০তম বার্ষিকীতে সম্পর্ক জোরদারের অঙ্গীকার বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার

gmtnews

মন্তব্য করুণ

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই অপ্ট আউট করতে পারেন। স্বীকার করুন বিস্তারিত