অগ্রবর্তী সময়ের ককপিট
ক্রিকেট খেলা সর্বশেষ

ভারতের বিপক্ষে আজ কি আরেক বিস্ময়ের জন্ম দেবেন হেড

ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপ ফাইনালে তিনি ছিলেন মহানায়ক। ১২০ বলে ১৩৭ রানের ইনিংস খেলে রোহিত শর্মার দল, নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের ১ লাখ ৩২ হাজার দর্শক তো বটেই; ১৪০ কোটি ভারতীয়কে যেন স্তব্ধ করে দিয়েছিলেন ট্রাভিস হেড। এরপর সতীর্থ ও পরিবারের সঙ্গে হেডের সেই যে উন্মত্ত উদ্‌যাপন শুরু হয়েছে, চলছে এখনো।

অথচ বিশ্বকাপ জয়ের ৪ দিনের মধ্যেই অস্ট্রেলিয়াকে আবারও খেলতে নেমে যেতে হচ্ছে; প্রতিপক্ষ সেই ভারত। আজ বিশাখাপত্তনমে শুরু হচ্ছে দুই দলের পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটি। বিশ্বকাপ শেষ হতে না হতেই দুই ফাইনালিস্টের আবার খেলতে নেমে যাওয়া অনেকের কাছে অর্থহীন মনে হচ্ছে। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন তো এই আয়োজনকে লোভ ও বাড়াবাড়ি বলেছেন।

এই সিরিজের কারণে অস্ট্রেলিয়ার দলের বিশ্বকাপ জয় উদ্‌যাপনও পণ্ড হয়ে গেছে। বিশ্বকাপজয়ী দলের আট সদস্য গতকাল দেশে ফিরেছেন। তাঁদের মধ্যে আছেন অধিনায়ক প্যাট কামিন্স, পেসার মিচেল স্টার্ক ও জশ হ্যাজলউড, উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স ক্যারি, ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার ও মারনাস লাবুশেন, অলরাউন্ডার ক্যামেরন গ্রিন ও মিচেল মার্শ। টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে হেডের সঙ্গে ভারতে রয়ে গেছেন স্টিভেন স্মিথ, অ্যাডাম জাম্পা, মার্কাস স্টয়নিস, শন অ্যাবট, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও জশ ইংলিস।

অদ্ভুত এ সূচি মেনে নিয়েই হেড-ম্যাক্সওয়েলদের উদ্‌যাপন আপাতত থামিয়ে মাঠে নামতে হচ্ছে। তবে বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতীয়দের অবিশ্বাসের ঘোরে ফেলে দিয়ে উন্মত্ত উদ্‌যাপনে মেতে ওঠা হেড আজ খেলতে নামলে সেটা বিস্ময়কর হবে বলে মন্তব্য করেছেন সতীর্থ মিচেল মার্শ। কাল মেলবোর্ন এয়ারপোর্টে পৌঁছে সাংবাদিকদের এ অলরাউন্ডার বলেছেন, ‘সে এই (আজকের) ম্যাচ খেলবে কি না, আমি নিশ্চিত নই। আমি নির্বাচক কিংবা কোচও নই। তবে সে যদি খেলে, সেটা অলৌকিক ব্যাপার হবে।’

টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষে হেড-ম্যাক্সওয়েলরা দেশে ফিরলে সবাই আবার একত্র হয়ে বিশ্বকাপ জয় উদ্‌যাপন করবেন বলেও জানিয়েছেন মার্শ, ‘আমরা দেশে ফিরলাম। আর ওরা এখনো ভারতে রয়ে গেছে। কয়েক দিন পর আমরা আবার মিলিত হব। এখন সে অপেক্ষায়ই আছি।’

আজ থেকে শুরু ভারত-অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি সিরিজটি হওয়ার কথা ছিল অনেক আগে। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে সেটা এত দিন পর হতে চলেছে। আইসিসির বাধ্যবাধকতা থাকায় এই সিরিজ আর পেছানোর বা বাতিল করার সুযোগ নেই। তাই ঠাসা সূচির মধ্যেই হেড-ম্যাক্সওয়েলদের খেলতে হচ্ছে।

ভারতীয় দলকে অবশ্য অস্ট্রেলিয়ানদের মতো জটিলতায় পড়তে হচ্ছে না। বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলা শুধু একজন আছেন টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে; সূর্যকুমার যাদব। দলকে নেতৃত্বও দেবেন আইসিসি টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ এই ব্যাটসম্যান। সূর্যকুমার ছাড়া বিশ্বকাপ দলে থাকা আর মাত্র দুজন আছেন এই সিরিজে—উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান ঈশান কিষান ও পেসার প্রসিধ কৃষ্ণা।

এই সিরিজ দিয়েই ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু হতে যাচ্ছে।

সম্পর্কিত খবর

ডুবন্ত মানুষ বাঁচাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন নৌযান

Hamid Ramim

মূল্যস্ফীতি আর লোডশেডিংয়ে কষ্ট পাচ্ছে মানুষ: প্রধানমন্ত্রী

gmtnews

ভারতে অক্টোবরের মধ্যে তৃতীয় ঢেউ এর আশঙ্কা

News Editor

মন্তব্য করুণ

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই অপ্ট আউট করতে পারেন। স্বীকার করুন বিস্তারিত