অগ্রবর্তী সময়ের ককপিট
খেলা সর্বশেষ

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে, বাংলাদেশে দলের জন্য আজকের দিনটা কঠিনতম পরীক্ষার

বাংলাদেশের জন্য আজকের দিনটা হতে পারে কঠিনতম পরীক্ষার। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো ইনফর্ম একটা দলের বিপক্ষে ম্যাচ, যে দলে দৃশ্যত কোনো দুর্বলতা নেই। মুম্বাইয়ে ওরা এরই মধ্যে একটি ম্যাচ খেলে জিতেছে। সে কারণে সব দিক থেকেই প্রোটিয়ারা এগিয়ে আছে। ওরা নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে হেরেছে ঠিকই, কিন্তু তাদের দাপুটে ক্রিকেট খেলার সক্ষমতাকে ছোট করে দেখার কোনো সুযোগ নেই।

এ ম্যাচে বাংলাদেশের সম্ভাবনা খুব কম। তবু এমন একটি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে যদি ইতিবাচক ফল আসে, তাহলে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের নবজাগরণ হবে। নিজেদের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর বিশাল সুযোগ এটি, নিজেদের মেলে ধরারও। এই ম্যাচের অর্জন নিয়ে পরের খেলাগুলোতে ভিন্ন চেহারায় আবির্ভূত হতে পারব আমরা। পরের চারটি ম্যাচ বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে খুব গুরুত্বপূর্ণ।

এই ম্যাচটায় সুস্থ সাকিব আল হাসানকে পাওয়ার কথা শুনছি। যদি তা–ই হয়, তাহলে বাংলাদেশ কাঙ্ক্ষিত সমন্বয় নিয়ে মাঠে নামতে পারবে। বাংলাদেশ নিশ্চয়ই ছয়জন বোলার নিয়ে খেলতে চাইবে এবং সেটা সাকিব একাদশে থাকলেই সম্ভব। আমরা দেখেছি, ভারতের বিপক্ষে সাকিব না থাকায় পাঁচজন বোলার খেলেছেন। সেটা অবশ্যই যথেষ্ট নয়। বোলারদের কথা যেহেতু এল, চোটের কারণে তাসকিনের আজকের ম্যাচটাও না খেলতে পারা হতাশাজনক।

তাসকিনের জায়গায় আগের ম্যাচে খেলা হাসান মাহমুদ খেলতে পারেন কিংবা আমরা হয়তো জুনিয়র সাকিবকেও দেখতে পারি। মোস্তাফিজ ও শরীফুল হয়তো বাকি দুই পেসারের জায়গা ধরে রাখবেন। দুই স্পিনার হিসেবে ছিলেন মিরাজ ও নাসুম। মাহমুদউল্লাহ বোলিং করেননি। তাই বলছি, পাঁচ বোলার নিয়ে খেলাটা বিরাট ঝুঁকির। সাকিব ফেরায় সে সমস্যাটা কেটে যাবে।

ভারতের বিপক্ষে লিটন-তানজিদের উদ্বোধনী জুটি খুব ভালো করেছে। বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে তাঁরা যে ব্যাটিংটা করেছেন, আশা করি সেটার পুনরাবৃত্তি আজ দেখতে পাব। আশা করব, মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরাও ঘুরে দাঁড়াবেন। যদি মাঝের ওভারে কম উইকেট দিয়ে ডেথ ওভারে যেতে পারি, তাহলে ভালো অর্জন হবে।

ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে মূল ব্যাটসম্যানদের ওপর দল আস্থা রাখুক, এ ম্যাচে সেটা দেখতে চাইব। ব্যাটসম্যানরা যিনি যেখানে খেলে অভ্যস্ত, তাঁদের সেখানে খেলানোর সুযোগ দিলে স্থিতিশীলতা আসবে। মিরাজ যদি লোয়ার অর্ডারে ব্যাটিং করেন, তাহলে সেটা দলের ব্যাটিং ভারসাম্যটাকে ভালো জায়গায় নিয়ে আসবে। তাই ব্যাটিং নিয়ে আর নাড়াচাড়া দেখতে চাই না। দেখতে চাই স্থিতিশীলতা।

সম্পর্কিত খবর

আজ নিউজিল্যান্ডের কাছে হারলেই বাদ পাকিস্তান

Shopnamoy Pronoy

আফগানদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কাজে যোগ দিতে বলছে তালেবান

gmtnews

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী রক্তের অক্ষরে লেখা: তথ্যমন্ত্রী

gmtnews

মন্তব্য করুণ

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই অপ্ট আউট করতে পারেন। স্বীকার করুন বিস্তারিত